মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
বিশ্বনাথে আ’লীগের পৌর ইউনিয়ন কমিটিতে স্থান পাননি সদ্য বিলুপ্ত কমিটির ৩৯ নেতা স্থান হয়েছে বিএনপি নেতা  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন হলেন বিশ্বনাথের ড. রইছ উদ্দিন  বিশ্বনাথে খাজাঞ্চী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রীতিগঞ্জ বাজারে নির্মাণের দাবি বিশ্বনাথে আমন ধানের বাম্পার ফলন বিশ্বনাথে অসুস্থ আল- ইসলাহ’র মহাসচিবের পাশে আর-রাহমান ট্রাস্টের সভাপতি উৎসব মূখর পরিবেশে চৌহালীতে ৩৫৫ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল বিশ্বনাথে মাঠে মাঠে শীতকালীন সবজি বিশ্বনাথে পুত্রবধূর নির্যাতনে প্রতিবন্ধী ননদ শাশুড়ীসহ আহত- ২ বিশ্বনাথে সম্পত্তি দখলে প্রবাসীকে হত্যার চেষ্টা অবশেষে সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত

সিলেটে চলছে পরিবহন ধর্মঘট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি : পাঁচ দফা দাবিতে সিলেট বিভাগে চলছে পরিবহন ধর্মঘট। ধর্মঘটের কারনে সকাল থেকে বন্ধ রয়েছে সব ধরনের যান চলাচল।
যাত্রীবাহী যানবাহনের পাশাপাশি পন্যবাহী যানবাহনও বন্ধ রয়েছে। আচমকা ডাকা এ ধর্মঘটের কারনে বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা। তবে এসএসসিসহ অন্যান্য পরীক্ষার্থী, রোগী, বিদেশযাত্রী এবং জরুরি সেবার গাড়িগুলোকে ধর্মঘটের আওতামুক্ত রাখা হয়েছে।
সোমবার সকাল থেকে সড়ক থেকে মহাসড়ক পর্যন্ত শ্রমিকরা অবরোধ করে রাখে। অভ্যন্তরীণ বাস চলাচল বন্ধের পাশাপাশি সিলেট থেকে অবরোধের কারণে দূরপাল্লার কোন বাস ছেড়ে যায়নি। সেই সাথে সকাল থেকে শ্রমিকরা সড়কে পিকেটিং করতে দেখা যায়।
তবে সকাল থেকে অন্যান্য দিনের তুলনায় সিলেট নগরীতে প্রাইভেট যানবাহনের সংখ্যা বেশী দেখা গেছে।
এদিকে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে দক্ষিণ সুরমার কদমতলীসহ সিলেটের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
মেয়াদোত্তীর্ন সেতুতে টোল আদায় বন্ধ, নগরের ভেতরে ছোটো গাড়ির পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করাসহ ৫ দফা দাবি রোববার এ ধর্মঘটের ডাক দেয় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন।
এর আগে ডিজেলের মুল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে গত ৫ নভেম্বর থেকে টানা ৭২ ঘন্টার ধর্মঘট পালন করে পরিবহন মালিক শ্রমিকরা।
শ্রমিকদের ঘম ঘন ধর্মঘট আহবানে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। সিলেট কেন্দ্রিয় বাস টার্মনালে দাঁড়িয়েছিলেন ব্যাংক কর্মকর্তা হোসেন আহমদ।
প্রতিদিন সিলেট থেকে তিনি গোয়ালবাজারে অফিস করতে যান। তিনি বলেন, কিছু হলেই পরিবহন মালিক শ্রমিকরা ধর্মঘট ডেকে বসেন।
আমাদের জিম্মি করে তারা নিজেদের দাবি আদায় করতে চান। এটা খুবই অনায্য। আইন করে জরুরী সেবা পরিবহন খাতের ধর্মঘট বন্ধের দাবি জানান তিনি।
আগের ধর্মঘটে মাইক্রোবাস, অটোরিকশা চলাচল করলেও এবার সেগুলোও বন্ধ রয়েছে। ফলে অনেকটাই অচল হয়ে পড়েছে সিলেট। এতে যাত্রী দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।
বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সিলেটের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু সরকার বলেন, আমরা একাধিকবার বৈঠকে বসে আমাদের দাবির কথা বলার পাশাপাশি স্মারকলিপিও দিয়েছি কিন্তু তাতে কোন কাজ হয়নি।
সেসব দাবি মানার কোনো উদ্যোগ না নেওয়ায় পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। আমাদের দাবি যতসময় মেনে নেয়া না হচ্ছে ততক্ষণ অবরোধ চলবে।
সিলেট থেকে অভ্যন্তরীণ বাস চলাচলা বন্ধের পাশাপাশি দূরপাল্লার বাস চলাচলও বন্ধ রয়েছে।
পরিবহন ধর্মঘট চললেও আমরা আমাদের কর্মীদের বলে দিয়েছি- এসএসসিসহ অন্যান্য পরীক্ষার্থী, রোগী, বিদেশযাত্রী এবং জরুরি সেবার গাড়িগুলোকে ছেড়ে দিতে।
তবে অন্য কোনো গাড়ি রাস্তায় চলতে দিবো না আমরা।
শ্রমিকদের ৫ দফা দাবিগুলো হলো- সিলেট জেলা অটোটেম্পু ও অটো রিকশাচালক শ্রমিক জোটের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা এবং প্রহসনমূলক নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তথাকথিত ঘোষিত কমিটি বাতিল করা ও মনোনয়ন ফি বাবদ আদায় করা টাকা ফেরত দেওয়াসহ সিলেটের আঞ্চলিক শ্রম দপ্তরের উপপরিচালককে প্রত্যাহার; সিলেট জেলা বাস, মিনিবাস কোচ-মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের ওপর কোতোয়ালি থানায় দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার; সিলেটের ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশের হয়রানি বন্ধ; মেয়াদোত্তীর্ণ সেতুতে (শেরপুর সেতু, শেওলা সেতু, লামাকাজী সেতু, ফেঞ্চুগঞ্জ সেতু ও শাহপরান সেতু) টোল আদায় বন্ধ এবং সিলেটের চৌহাট্টাসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে কার, মাইক্রোবাস, লেগুনা, সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ ছোট গাড়ির জন্য পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

© All rights reserved